আজ থেকে হিজরী নববর্ষ শুরু - বিডি খবর ডটকম
ঢাকা, বাংলাদেশ | শনিবার, ২ মার্চ ২০২৪ , ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

শিরোনামঃ

প্রচ্ছদ ইসলাম ও জীবন ধর্ম আজ থেকে হিজরী নববর্ষ শুরু

আজ থেকে হিজরী নববর্ষ শুরু

bd

আজ আমাদের কাছ থেকে ১৪৪৪ হিজরি বিদায় নিয়ে হিজরি নববর্ষ ১৪৪৫ সমাগত। খোশ আমদেদ হিজরী নববর্ষ ১৪৪৫।
১লা মহরমের মধ্যদিয়ে হিজরি নববর্ষ ১৪৪৫ এর সূচনা। মুহররম ইসলামী পঞ্জিকা হিজরি সনের প্রথম মাস। ইসলামে এ দিনটি মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য এক বিশেষ ও ঐতিহাসিক ঘটনা প্রবাহের সাক্ষী এবং স্মারক। হিজরি সন এমন একটি সন, যার সাথে মুসলিম উম্মাহর তাহজিব-তামাদ্দুন ও ঐতিহ্যের ভিত্তি সম্পৃক্ত। মুসলমানদের রোজা, হজ, ঈদ, শবেবরাত, শবেকদর, শবে মেরাজসহ ইসলামের বিভিন্ন বিধি-বিধান হিজরি সনের ওপর নির্ভরশীল। রাসূলুল্লাহ (সাঃ) এর সময়ে ও তার পূর্বে রোমান, পারসিয়ান ও অন্যান্য জাতির মধ্যে তাদের নিজস্ব ক্যালেন্ডার বা পঞ্জিকা প্রচলিত ছিল। আরবদের মধ্যে কোনো নির্ধারিত বর্ষ গণনা পদ্ধতি ছিল না। বিভিন্ন ঘটনার উপর নির্ভর করে তারিখ বলা হত। খলিফা হযরত উমর ফারুক (রা.) এর শাসনামলে ১৬ হিজরি সনে, প্রখ্যাত সাহাবি হযরত আবু মুসা আশআরী (রা.) ইরাক এবং কুফার গভর্নর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। একদা হযরত আবু মুসা আশআরী (রা.) খলিফা উমরের (রা.) খেদমতে এ মর্মে পত্র লিখেন যে, আপনার পক্ষ থেকে পরামর্শ কিংবা নির্দেশ সংবলিত যেসব চিঠি আমাদের নিকট পৌঁছে তাতে দিন, মাস, কাল, তারিখ ইত্যাদি না থাকায় চিঠি-পত্র কোন সময় , কোন দিনের তা নিরুপণ করা আমাদের জন্য সম্ভব হয় না। এতে করে আমাদের নির্দেশ কার্যকর করতে সমস্যা হয়। অনেক সময় আমরা বিব্রত বোধ করি চিঠির ধারাবাহিকতা না পেয়ে। হযরত আবু মুসা আশআরীর চিঠি পেয়ে হযরত উমর (রা.) এ মর্মে পরামর্শ সভার আহবান করেন যে, এখন থেকে একটি ইসলামি তারিখ প্রবর্তন করতে হবে। উক্ত পরামর্শ সভায় হযরত উসমান (রা.), হযরত আলী (রা.) সহ বিশিষ্ট অনেক সাহাবি উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত সকলের পরামর্শ ও মতামতের ভিত্তিতে ওই সভায় ওমর (রা.) সিদ্ধান্ত দেন ইসলামি সন প্রবর্তনের। তবে কোন মাস থেকে বর্ষের সূচনা করা হবে তা নিয়ে পরপস্পরের মাঝে মতভেদ সৃষ্টি হয়। কেউ মত পোষণ করেন রাসুল (সা.)এর জন্মের মাস রবিউল আউয়াল থেকে বর্ষ শুরু করার। আবার কেউ কেউ মত পোষণ করেন রাসুলের ওফাতের মাস থেকে বর্ষ শুরু করা হোক। অন্যান্যের মতে হুজুর (সা.) এর হিজরতের মাস থেকে বর্ষ গণনা করা হোক। এভাবে বিভিন্ন মতামত আলোচিত হওয়ার পর হযরত উমর (রা.) বললেন, হুজুর (সা.) এর আগমনের মাস থেকে হিজরি সনের গণনা শুরু করা যাবে না। কারণ খ্রিস্টান সম্প্রদায় হযরত ঈসা (আ.)-এর জন্মের মাস থেকেই খ্রিস্টাব্দের গণনা শুরু করেছিল। তাই রাসলের আগমনের মাস থেকে সূচনা করা হলে বাহ্যত খ্রিস্টানদের অনুসরণ ও সাদৃশ্যতা হয়ে যায়, যা মুসলমানদের জন্য পরিত্যাজ্য। পরিশেষে সর্বসম্মতিতে হিজরত থেকেই হিজরী সনের শুরু হয়।
আজ বৃহস্পতিবার,১ রা মহররম,২০ জুলাই হিজরী বর্ষের সূচনা হল। অন্যভাবে বললে, জীবনের নির্ধারিত সময় থেকে আরও একটি বছর শেষ হয়ে গেল। এই বর্ষসূচনা আনন্দ-উল্লাস নয়, আত্মজিজ্ঞাসার বার্তা নিয়ে আসে। বিগত বছরের ত্রুটি বিচ্যুতিগুলো পর্যালোচনা করে জীবনের অবশিষ্ট সময়টুকু ফলপ্রসূ করে তোলার প্রেরণা জাগ্রত করার জন্য এবং আলোকিত জীবন যাপনের একটি উপলক্ষ এই বর্ষসূচনা। সে চান্দ্রবর্ষ হোক কিংবা সৌরবর্ষ। তবে কেবল বর্ষসূচনাই নয়, প্রতিটি মাস, সপ্তাহ, দিন-রাতের আগমন আত্মজিজ্ঞাসার এক একটি উপলক্ষ। হিজরী নববর্ষের সুচনা মাস মহররম। ইসলামের দৃষ্টিতে বেশ গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যময় । এ মাসের রোযা, বিশেষত আশুরার রোযার প্রতি বিশেষ গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। বিভিন্ন ঐতিহাসিক ঘটনাও এমাসে সংঘটিত হয়েছে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর দৌহিত্র হযরত ইমাম হুসাইন রা. এই মাসেই শাহাদাত বরণ করেন। হুসাইন রা.-এর শাহাদাত মুসলিম উম্মাহকে অন্যায় ও জুলুমের বিরুদ্ধে আপোষহীন সংগ্রামে উদ্বুদ্ধ করে।
মহররম মাস এলে ব্যথিত হয় মুমিন মুসলমানদের হৃদয়। মহররমে সত্য-মিথ্যার পার্থক্য তৈরি করা হয়েছিল। মহররম মাস গুরুত্বপূর্ণ মাস। মহররম শব্দের অর্থ সম্মানিত। এই মাসকে সন্মানিত মাস হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। পবিত্র কোরআনে সূরা তাওবার ৩৬ নং আয়াতে উল্লেখ রয়েছে, ‘আকাশ ও পৃথিবী সৃষ্টির দিন থেকেই আল্লাহর নিকট মাসের সংখ্যা বারো, তন্মধ্যে চারটি মাস সম্মানিত।’ হাদিস শরিফে এই মাসকে ‘শাহরুল্লাহ’ বা ‘আল্লাহর মাস’ বলা হয়েছে। । আর পবিত্র কোরআনে উল্লেখিত সুরা তাওবার ৩৬ নম্বর আয়াতে ‘অতি সম্মানিত ও মর্যাদাপূর্ণ চার মাস’ বলতে মহররম, রজব, জিলকদ, জিলহজ মাস কে বুঝায়।
আরবি বছরের প্রথম মাস মহররম। মহররম মাসকে আরবের লোকেরা খুবই সন্মান করে। ইসলামের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা এই মাসে সংগঠিত হয়েছিল। এই মাসে রোজা রাখার কথা হাদিস শরিফে পাওয়া যায়। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, রমজানের রোজার পর সবচেয়ে উত্তম রোজা হলো মহররম মাসের রোজা।’ (মুসলিম)। আরবি নতুন বছর ১৪৪৫ হিজরী নববর্ষ সকলের জীবনে বয়ে আনুক সুখ- শান্তি এবং বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর ঐক্য ও সমৃদ্ধি গড়ে উঠুক। মহান আল্লাহ তায়ালার নিকট এই প্রার্থনা করি।।

গাজী মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জাবির, ধর্ম ও সমাজ সচেতন লেখক, সাংবাদিক, চেয়ারম্যান, গাউছিয়া ইসলামিক মিশন ও সভাপতি, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা, বুড়িচং উপজেলা কমিটি, কুমিল্লা।

শেয়ার করুনঃ
0 ভিউ

মার্কিন প্রতিনিধি দলের মুরাদনগরের কৃষি কার্যক্রম পরিদর্শন

মুরাদনগরে পরীক্ষায় নকল দিতে গিয়ে ৩জন আটক, মোবাইলকোর্টে ২বছরের সাজা

মুরাদনগরে পরীক্ষায় নকল দিতে গিয়ে ৩জন আটক, মোবাইলকোর্টে ২বছরের সাজা

মুরাদনগরে ‘রোহিঙ্গা’ যুবকের জন্ম নিবন্ধন! পাসপোর্ট করতে গিয়ে ধরা

শ্রীমন্তপুর এম এ ছাত্তার উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান

প্রতিপক্ষের হামলার প্রতিবাদে আহত ফ্রান্স প্রবাসীর সংবাদ সম্মেলন

নাগেশ্বরীতে টঙ্গী ইসতেমার রিজার্ভ বাসে ছদ্মবেশে মাদক পরিবহনের চেষ্টায় আটক-১

শ্রীমঙ্গলে কোয়াব কাপ টি-১৬ ক্রিকেট-২৪ টুর্নামেন্ট’র উদ্বোধন

বুড়িচং উপজেলা আইন শৃঙ্খলা ও মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

নাগেশ্বরীতে ২০ বোতল ফেন্সিডিল ও ০২ বোতল ইস্কাফসহ মাদক কারবারি আমিনুল গ্রেফতার

আগামীকাল বিটিভিতে প্রচারিত হবে মমিন মোল্লার অংশগ্রহণে ” দেশটাকে ভালবেসে ” অনুষ্ঠান।।

বিয়ের প্রলোভনে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ, যুবক গ্রেফতার

চেলসির সঙ্গে ড্র, ফাইনালের পথ কঠিন হলো রিয়ালের

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে দিল্লিকে হারিয়ে শীর্ষে কোহলিরা

আরও ২/৩ দিন হাসপাতালে থাকতে হবে খালেদা জিয়াকে

খাদ্যের সঙ্গে পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিতেও কাজ হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

পপ সম্রাটের বিরদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ প্রত্যাখান

ইউনেসকোর প্রেস ফ্রিডম পুরস্কার জিতলেন মারিয়া রেসা

দিরাইয়ে বজ্রপাতে দুই সহোদরের মৃত্যু, আহত ৩

রাজধানীতে অভিযানে গ্রেফতার ৩০

ওবায়দুল কাদের আপনি রেহাই পাবেন না: কাদের মির্জা


উপরে